বাংলাদেশ, , রোববার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

ম্যাশের রাজনীতি আর রাজনীতির ম্যাশ । রাশেদুল হক রাসেল

  প্রকাশ : ২০১৮-১১-১২ ১০:৫০:০০  

সিবিএম : 

মাশরাফি+রাজনীতি + ইমরান খান+ আর আমরা যারা রবি ঠাকুরের ভাষায়-

” বাঙালি হয়েছি মানুষ হয়নি” তারা !!!!”””!

০১. ইমরান খানকে ক্ষমতায় বসিয়েছে পাক সেনারা, বাংলাদেশে কী ম্যাশকে বসাবে? কিংবা বসানো সম্ভব?

০২. বাংলাদেশে যারা আ. লীগ ও বি.এন.
পি করে তাদেরকে কোনভাবেই আ. লীগকে যেমন বিএনপি সমর্থক বানানো যাবে না, ঠিক তেমনি বিএনপিকেও আ.লীগ বানানো যাবে না। ( গোটি কয়েক উপরের লেভেলের আদর্শ বিহীন সুবিধাবাদী রাজনীতিবিদ ছাড়া. যেমন মওদুদ)
অতএব, ম্যাশ আ.লীগে যোগ দেয়ায় অন্যান্য দলের সাপোর্টার স্বাভাবিকভাবেই ক্ষেপেছে।

০৩. সে যতো ম্যাশ কিংবা সাকিব-ই হোক না কেন এদেশে দুই পরিবারের বাইরে কেউ দেশ চালানোর ক্ষমতা রাখে না। এ দুই পরিবারের বাইরে কাউকে লোকজন মানতেও চাইবে না। এমনকি দলীয় লোকদেরই নিয়ন্ত্রণ করা অসম্ভব হবে।

০৪. পরিবারতন্ত্র গণতন্ত্রের জন্য অবশ্যই খারাপ। কিন্তু দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতি মানেই পরিবারতন্ত্র! বাংলাদেশে এটার উপযোগিতার কারণ হলোঃ আ. লীগে বংবন্ধুর কন্যার কারণেই দলীয় শৃঙ্খলা এখনও অটুট। উনার পরিবরতে অন্য কেউ হলে ভেবে দেখুন তো একবার! একই অবস্থা বিএনপিতেও খালেদা-তারেকের কারণেই এখনো যা দলীয় শৃঙ্খলা বলে কিছু আছে।

০৫. ম্যাশ+ সাকিব নিজ দল গঠন করতে পারে ঠিকই কিন্তু কখনো প্রধানমন্ত্রী হতে পারবে না! কারণ, দিনশেষে সবাই নৌকা আর ধানের শীষেই ভোট দিবে।

০৬. প্রতিটি মানুষের ই রাজনৈতিক মতাদর্শ থাকবে (Man is a political animal).সে হিসেবে ম্যাশের ও আছে। কিন্তু সামনের বিশ্বকাপের চেয়ে MP পোস্টকে বেশি গুরত্ব দেয়ায়, তার এতোদিনের ভাংগা হাঁটো নিয়ে খেলাকেও অনেকেই প্রশ্নবাণে জর্জরিত করেছে।
করাটাও অমূলক নয় বৈ কী!

০৭. আমি মনে করি যে, ম্যাশ নিজ হাতেই জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার অকুণ্ঠ ভালবাসা ও শ্রদ্ধাকে বহুভাগে বিভক্ত করেছে।
তারপর ও শুভ কামনা রইল,,,

বার্তা প্রধান, রাশেদুল হক রাসেল।

সিবিএম



ফেইসবুকে আমরা