বাংলাদেশ, , সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০

‘শেখ হাসিনার ‘পাহারাদার’ হতেই জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিয়েছি’

  প্রকাশ : ২০১৮-১১-০৯ ১০:৩৬:১৬  

ডেস্ক নিউজ: সিবিএম

ক্ষমতার লোভে নয়, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতায় গেলে, আওয়ামী লীগের কোনও নেতাকর্মী যেন অত্যাচারের শিকার না হয় কিংবা আরেকটি হাওয়া ভবন যেন না হয় তার পাহারাদার হতেই ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিয়েছেন কাদের সিদ্দিকী। এমনটাই দাবি করলেন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে সবশেষে যোগ দেন কাদের সিদ্দিকী। প্রথমদিকে দলের নেতাকর্মীদের আপত্তির মুখে ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিতে তার দেরি হয়েছে বলে জানান তিনি। কাদের সিদ্দিকী জানান, ‘৮ই আগষ্ট আমরা একটি বর্ধিত সভা ডেকেছিলাম। সারাদেশ থেকে ওই সভায় ১২৬ জন অংশগ্রহণ করে।’ সেখানে ৭০ ভাগ আওয়ামী লীগে যাওয়ার মতামত দেয়। আমার কাছে মনে হয়েছে, আমাদের আরও একটু অপেক্ষা করা দরকার। এরপর আমরা আরও একটি বর্ধিত সভা ডেকেছিলাম সেখানে ৯৬ জন উপস্থিত হয়েছিলো এবং তাদের মধ্যে ৩৫ জন ড. কামালের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগদানের পক্ষে মত দেয়।’

তিনি আরও জানান, ‘ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতায় এলে কোনও অরাজকতা যেন না হয়, এটিই আমার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেয়ার প্রধান কারণ। শেখ হাসিনাকে যেন কেউ অসম্মান করতে না পারে, সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে আমাকে।’

সরকার বদল হলে অনাকাঙ্খিত কিছু ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা কাদের সিদ্দিকীর। সে পরস্থিতি ঠেকাতেই ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিয়েছেন বলে জানান তিনি। কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বলেন, ‘এই সরকার বদল হলে ৩ লাখ লোক মরবে। সে জন্য আমি ঐক্যফ্রন্টে গেছি, যাতে ৩টি লোকও না মরে। ‘পাহারাদার হবার জন্য গেছি। আমি এটা চাইনা আর একটা হাওয়া ভবন হোক। আজ খালেদা জিয়াকে যেভাবে জেলে রেখেছেন। ঐক্যফ্রন্টে আমি থাকলে শেখ হাসিনার গায়ে কেউ হাত দিতে পারবে না।’

তারেক রহমান প্রসঙ্গ জানতে চাইলে তার জবাব, ‘দলীয় নেতৃত্বে ফিরিয়ে আনার বিষয়টি বিএনপির দলীয় সিদ্ধান্ত। তিনি আরও বলেন, ‘তারেক রহমান এ দেশের  নাগরিক হিসেবে যেটুকু মর্যাদা পাবার সেটুকু তিনি পাবেন। তারেক তার অপরাধের শাস্তি পাবেন। এখন যে বিচার হচ্ছে, তার প্রতি মানুষের আস্থা নেই। আমি বিএনপি করি না। তাই বিএনপির নেতা কে হবে চোর, ডাকাত না সাধু এটা বিএনপির বিষয়।’

হেফাজতের সমাবেশের মাধ্যমে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানকে অপবিত্র করা হয়েছে বলেও মন্তব্য করে কাদের সিদ্দিকী। সেই সঙ্গে হেফাজতের সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীর যোগদানেরও সমালোচনা করেন তিনি। কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মাটি ছিল এতকাল পবিত্র। সেখানে বঙ্গবন্ধু ৭ই মার্চ ভাষণ দিয়েছেন। ওটা আমার কাছে কাবার মত পবিত্র। মদিনার মত পবিত্র। সেই জায়গাটায় ওই অপবিত্র মানুষটার সঙ্গে যে তিনি বসলেন, সেটা কিসের জন্য? ভোটে জেতার জন্য?’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কর্মসূচী ঘোষণায় সমন্বয়ের অভাব রয়েছে বলেও মনে করেন কাদের সিদ্দিকী।



ফেইসবুকে আমরা