বাংলাদেশ, , সোমবার, ২৫ মে ২০২০

অালোর মুখ দেখেনি; দমকল বাহিনী স্থাপনের দাবী ঈদগাঁওবাসীর    

  প্রকাশ : ২০১৮-১১-০১ ০৭:৫৬:১৪  

এম আবু হেনা সাগর, নিজস্ব প্রতিবেদক, ঈদগাঁও

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে ফায়ার সার্ভিস স্থাপনের দাবী জানিয়েছেন বৃহত্তর এলাকার জনগোষ্টি। ৩২ কিলোমিটার দূরবর্তী জেলা শহর কিংবা চকরিয়া থেকে দমকল বাহিনী আসতে না আসতেই অগ্নিকান্ড কবলিত বসতবাড়ী কিংবা দোকান পাট পুড়ে ছারখার হয়ে যায়।

তাই এসবের দিকে বিবেচনায় রেখে ফায়ার সার্ভিস স্থাপনের আহবান উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট। অগ্নিকান্ডের ভয়াবহ কালো থাবায় কোটি কোটি টাকার সম্পদ পুড়ে মাটি হয়ে যাচ্ছে প্রতিবছর। পোকখালী,জালালাবাদ, ইসলামাবাদ ইসলামপুর, চৌফলদন্ডীও ঈদগাঁওর প্রত্যান্ত গ্রামাঞ্চলে বসতবাড়ীসহ অন্যন্য জিনিসপত্র অগ্নিকান্ডের থাবায় ধংস হচ্ছে। দীর্ঘকাল ধরে আন্দোলন সংগ্রাম করে যাচ্ছে ঈদগাঁওর তিন লক্ষাধিক জনগোষ্টী।

একমাত্র দাবী একটি ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপনের জন্য। কিন্তু সে দাবী আজ অবধি পর্যন্ত সাংবাদিক ও লেখকদের লেখনিতে জাগ্রত রয়েছে। ঈদগাঁওর কোন এলাকায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলেই কক্সবাজার কিংবা চকরিয়া থেকে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা কখনো সম্বব নয়। ঐখান থেকে দমকল বাহিনী এসে আগুন নিভানোর পূর্বেই সবকিছু পুড়েই ছারখার হয়ে যায়।

এভাবে শত শত দরিদ্র পরিবার সবকিছু হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পথের ভিখারি হচ্ছে। জেলা সদরের গুরুত্বপূর্ণ বানিজ্যিক এলাকা হিসাবে খ্যাত ঈদগাঁও বাজারে ব্যবসায়ীক লেনদেনসহ দোকান পাঠ, ঘরবাড়ী ও জনবসতি বেশী বলে জানা গেলেও অদ্যবধি এখনো পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিস স্থাপন আলোর মুখ দেখেনি।

এমনকি ঈদগাঁওতে একটি দমকল বাহিনীর স্টেশন স্থাপন জরুরী বলে মনে করেছেন সামাজিক ও রাজনৈতিক দলের স্থানীয় নেতৃবৃন্দরা। এদিকে অগ্নিকান্ডের শিকার কয়েকজনের সাথে কথা হলে তারা দুঃখ প্রকাশ করে কক্সবাজার মেসেজ সিবিএমকে জানান, ঈদগাঁওর বিভিন্ন এলাকায় বিগত বহুবছর পূর্বেই অগ্নিকান্ডের মত দূর্ঘটনায় শিকার হয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল। এই দূর্ঘটনা থেকে পরিত্রান পেতে অবিলম্বে ঈদগাঁও তে একটি ফায়ার সার্ভিস জরুরী। দমকল বাহিনী স্থাপনের বিষয়টি যদি বিবেচনা করা হয়, তাহলে ঈদগাঁওবাসী ফের নতুন করে আশার আলো খুঁজে পাবে।

এ ব্যাপারে এলাকাবাসীর মতে, ঈদগাঁওতে ফায়ার সার্ভিস স্থাপন এখন সময়ের যৌক্তিক দাবী।
উল্লেখ্য যে, ঈদগাঁও ইউনিয়নে মেহেরঘোনা নামক এলাকায় ফায়ার সার্ভিস স্থাপনের জন্য পূর্বে একটি জায়গা নির্ধারণ করাও হয়েছিল।



ফেইসবুকে আমরা